protichinta

দুর্নীতি, দুর্নীতির নিয়ন্ত্রণ এবং পরিবর্তনের চালকেরা: প্রেক্ষিত বাংলাদেশ

নুরুল ইসলাম, অনুবাদ: রেজাউল হক

সারসংক্ষেপ

বাংলাদেশের মতো তৃতীয় বিশ্বের রাষ্ট্রগুলোর রাষ্ট্রীয় খাতে দুর্নীতি একটি বহুল আলোচিত বিষয়। এই দুর্নীতির উত্সমুখগুলো চিহ্নিত করার তাগিদ থেকেই প্রতিনিয়ত দুর্নীতি নিরূপণ এবং নিবারণের কৌশল খুঁজতে নিরন্তর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। সেই প্রচেষ্টারই ধারাবাহিকতায় এই গবেষণাভিত্তিক প্রবন্ধটি প্রাথমিকভাবে নীতিপত্র হিসেবে জাতীয় গবেষণা প্রতিষ্ঠান বিআইডিএস কর্তৃক ইংরেজিতে ছাপা হয়েছিল, যার অনুবাদ ছাপা হলো। এই প্রবন্ধে প্রবৃদ্ধি ও দুর্নীতির সামষ্টিক সম্পর্কের আর্থগাণিতিক বর্ণনার পরিবর্তে বিভিন্ন ধরনের দুর্নীতি এবং সুনির্দিষ্ট খাতের পারফরম্যান্সের ওপর এসব দুর্নীতির প্রভাব বিশ্লেষণের ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। এটিকে দুর্নীতির প্রভাব বিশ্লেষণের এবং দুর্নীতিবিরোধী পদক্ষেপ গ্রহণের ফলপ্রসূ উপায় হিসেবে দেখা হয়েছে। সে জন্য দুর্নীতির ধারণা সূচকের মতো সমন্বিত দুর্নীতি নিরূপণ সূচকের পাশাপাশি প্রয়োজন পড়েছে অর্থনীতির সুনির্দিষ্ট খাতে দুর্নীতির ব্যাপকতা বোঝার জন্য সম্পূরক বিশ্লেষণের। এটি করা হয়েছে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মতামতভিত্তিক জরিপের ভিত্তিতে। দুর্নীতির সামগ্রিক বিষয়গুলো বোঝার জন্য প্রবৃদ্ধি ও দুর্নীতির সম্পর্ক, ঘুষের লেনদেন, উন্নয়ন প্রকল্পে দুর্নীতি, নির্বাচনে দুর্নীতি, সেবা খাতে দুর্নীতি এবং তৃণমূলে মধ্যবিত্ত শ্রেণির দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনের মতো বিষয়গুলোর ওপর বিশেষ দৃষ্টি দেওয়া হয়েছে। 

মুখ্য শব্দগুচ্ছ

দুর্নীতি, সেবা খাত, ঘুষ, দুর্নীতির সূচক, বাংলাদেশ, স্বচ্ছতা, নির্বাচন, মধ্যবিত্ত শ্রেণি, দুদক।

pathok

যোগাযোগের ঠিকানা

সিএ ভবন,
১০০ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,
কারওয়ান বাজার, ঢাকা - ১২১৫।

ফোন: ৮৮০-২-৮১১০০৮১, ৮১১৫৩০৭
ফ্যাক্স - ৮৮০-২-৯১৩০৪৯৬

protichinta kinte chile