protichinta

একবিংশ শতকে পুঁজি: মার্ক্স থেকে পিকেটি

এম এম আকাশ

সারসংক্ষেপ

মার্ক্স-সমর্থক ও মার্ক্সবিরোধী উভয় দলই কার্ল মার্ক্সকে সঠিকভাবে উপস্থাপন করতে ব্যর্থ হয়েছে। মার্ক্সের দর্শনকে সামনে এগিয়ে নিতে হলে সুষ্ঠু মার্ক্সপাঠ অত্যাবশ্যকীয়। মার্ক্সের অন্যতম কৃতিত্ব হলো তাঁর পুঁজি গ্রন্থ, যার ভেতর দিয়ে তিনি পুঁজির বিকাশ ও এর মধ্যে অন্তর্নিহিত বিনাশের উপাদানগুলো ব্যাখ্যা করেছেন। এ সম্পর্কে সঠিকভাবে জানা যেমন প্রয়োজন, তেমনি বর্তমান যুগকে মাথায় রেখে পুঁজির পরিবর্তনগুলোয় নজর দেওয়া জরুরি। অনেকগুলো পরিবর্তনের মধ্যে মার্ক্সবাদী অর্থনীতিবিদেরা আর্থিক পুঁজি, শিল্পপুঁজি, বাণিজ্যিক পুঁজি ও করপোরেট পুঁজি নামের চারটি নতুন উপাদানের কথা বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে সামনে এনেছেন বারবার। এর পাশাপাশি মার্ক্সবাদীদের আত্মজিজ্ঞাসাও বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। সমাজতন্ত্র বিজয়ী হলো নাকি পুঁজিবাদ বিজয়ী হলো, সেই আলোচনার চেয়ে সমাজতন্ত্রের অস্তিত্বের প্রয়োজনীয়তায় বেশি জোর দেওয়া প্রয়োজন। থমাস পিকেটি একবিংশ শতকে পুঁজির ধরন ব্যাখ্যা করতে গিয়ে মার্ক্স ও পুঁজিবাদী অর্থনীতিবিদ কুজনেত্স উভয়কেই সমালোচনা করেছেন। আধুনিককালে পুঁজির ধরন নিয়ে তিনি বিস্তর বিশ্লেষণ করে দেখিয়েছেন কেন বৈষম্য ক্রমাগতভাবে বাড়বে এবং তার করণীয় কী।

মুখ্য শব্দগুচ্ছ: মার্ক্স, পুঁজির বিকাশ ও বিনাশ, পিকেটি, একুশ শতকে পুঁজি, মার্ক্স-পিকেটি সম্পর্ক, পুঁজির বৈচিত্র্য, মার্ক্সবাদীদের আত্মজিজ্ঞাসা, পুঁজিবাদ সংস্কার।

pathok

যোগাযোগের ঠিকানা

সিএ ভবন,
১০০ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,
কারওয়ান বাজার, ঢাকা - ১২১৫।

ফোন: ৮৮০-২-৮১১০০৮১, ৮১১৫৩০৭
ফ্যাক্স - ৮৮০-২-৯১৩০৪৯৬

protichinta kinte chile