protichinta

সম্পাদকীয়

বাংলাদেশে জনপরিমণ্ডলব্যবস্থা বা পাবলিক স্ফেয়ার বরাবরের মতই উদারনৈতিকতাভিত্তিক ছিল। কিন্তু সম্প্রতি বাংলাদেশের রাজনীতিতে ধর্মকেন্দ্রিকতার প্রভাব বিবেচনার পরিপ্রেক্ষিতে জনপরিমণ্ডলব্যবস্থার পরিবর্তন নিয়ে আলোচনা জরুরি হয়ে পড়েছে। ইসলামপন্থী একটি জনপরিমণ্ডলব্যবস্থা বাংলাদেশের সমাজে ক্রমেই গড়ে উঠছে। আলী রীয়াজ এ বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে জনপরিমণ্ডলের ইসলামীকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা ইসলামি ফিকশন লেখা ও প্রকাশ এবং নারীদের মধ্যে ইসলামসম্পর্কিত পাঠচক্র প্রতিষ্ঠার উপর আলোকপাত করেছেন। কিভাবে নতুন ধরণের জনপরিমণ্ডল তৈরিতে এই দুটি ব্যবহার করছে তার চিত্রটি তিনি এ প্রবন্ধে তুলে ধরেছেন।

বর্তমান বিশ্বে অন্যতম আলোচিত বিষয় হল মার্কিন নজরদারি কর্মকাণ্ড এবং সেসব রেকর্ড ফাঁস হয়ে যাওয়া। ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাসী পাশ্চাত্য সমাজ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে এটি একটি চরম আঘাত। অর্থনৈতিক ব্যবস্থা টিকিয়ে রাখার সঙ্গে নজরদারি ব্যবস্থা জোরদার এবং সামরিক ব্যয় বৃদ্ধির মাধ্যমে সামরিক-শিল্প কমপ্লেক্সকে টিকিয়ে রাখা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম নীতিতে পরিণত হয়েছে। এ বিষয়টির একটি তথ্যবহুল বিষদ তাত্ত্বিক বিশ্লেষণ করেছেন জন বেলামি ফস্টার ও রবার্ট ডব্লিউ ম্যাকচেনজি। আমরাও ডিজিটাইজেশনের কথা বলছি, বলছি ডিজিটাল অর্থনীতির কথা—আমাদের ভবিষ্যত্ এই বিশ্ব বাস্তবতার উপর ভিত্তি করেই চলছে। এই বিশ্ব বাস্তবতার উপর ভিত্তি করেই চলছে। এই বিশ্ব বাস্তবতাকে পরস্পরের তাই বোঝা-পড়া জরুরি। সে বিবেচনা থেকে এ প্রবন্ধটি মান্থলি রিভিউ থেকে অনুবাদ করে ছাপানো হলো।  

বৈদেশিক রেমিট্যান্স বাংলাদেশের অর্থনীতির একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উত্স। তবে এর সঙ্গে নারীর ক্ষমতায়নের ধারণা যুক্ত রয়েছে। স্বামীর শ্রম অভিবাসনের ফলে স্ত্রীর বহির্মূখী কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে নারীর ক্ষমতায়ন ঘটে থাকে। এ বিষয়ে অনেক গবেষণা হয়েছে। কিন্তু সৈয়দা রোযানা রশীদ ভিন্ন আঙ্গিকে নারীর ক্ষমতায়নকে দেখার চেষ্টা করেছেন। পুরুষের অনুপস্থিতিতে নারীর এই ক্ষমতায়ন বাস্তবিক অর্থে কতটুকু স্থায়ী হয় তা পর্যালোচনা করতে লেখিকা ক্ষমতায়নের ধারণায় আবদ্ধ না থাকে আমিত্ব (Selfhood), ইচ্ছাশক্তি (Agnecy), এবং ‘ক্ষমতা’র (Power) মতো ধারণাগুলোর উপর জোর দিয়েছেন।  

প্রতিচিন্তায় এবারই প্রথম আমরা আর্কাইভাল দলিলপত্র ছাপছি। প্রথম আলোর পক্ষ থেকে মিজানুর রহমান খান যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল আর্কাইভে গবেষণা কাজে দুমাসের বেশি সময় নিয়োজিত ছিলেন। সেখানে প্রাপ্ত দলিলপত্রে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে কেন দেশকে মেধাশূন্য করার পরিকল্পনা করে বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করা হয় এবং জামায়াত ইসলাম নামক দলটি কিভাবে সেই বর্বর হত্যাকাণ্ডে সরাসরি ভূমিকা রেখেছে তার প্রমাণাদি পাওয়া যায়। 

ভাষার মাস ফেব্রুয়ারিকে সামনে রেখে বাঙালি জাতীয়তাবাদের অন্যতম স্তম্ভ বাংলাভাষাভিত্তিক আন্দোলন এবং আত্মত্যাগের মহিমা মাখা শহীদ মিনারের একটি ভিন্ন আলোচনা উপস্থাপন করা হয়েছে এই সংখ্যায়। শহীদ মিনারকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা জাতীয়তাবাদকে জোসে ম্যাপ্রিল প্রবাসী বাংলাদেশিদের দীর্ঘ দুরত্বের জাতীয়তাবাদ এবং স্মৃতির রাজনীতি বলে আখ্যায়িত করেছেন এবং কিভাবে এই শহীদ মিনার প্রবাসী বাংলাদেশিদেরকে সংযুক্ত রাখতে ভূমিকা রাখছে, তা তুলে ধরেছেন। একুশে ফেব্রুয়ারি সারা দুনিয়ায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালিত হচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশিরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাস করার পরও যে তাঁদের মাতৃভাষার প্রতি এবং বাঙালি জাতীয়তাবাদের প্রতি অভিন্ন অনুভূতি প্রকাশ করার সুযোগ রয়েছে এবং তা করে যাচ্ছেন, সে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার প্রয়োজনীয়তা থেকেই এই লেখাটি ছাপা হল।

বই আলোচনায় থাকছে জনাথন কুকের ডিজঅ্যাপিয়ারিং প্যালেস্টাইন। আলোচনা করেছেন আসজাদুল কিবরিয়া। ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের ভবিষ্যত নিয়েই এই বইটি। বিশ্ব রাজনীতিতে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন বিষয়টি একটি চলমান সংকট। মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতিকে প্রভাবিত করার মাধ্যমে এটি আদতে গোটা বিশ্ব রাজনীতিতেই বিরূপ প্রভাব ফেলছে। এই সংকটটি মাথায় রেখে দ্বিতীয় বই আলোচনাটি বাছাই করা হয়েছে হেনরি কিসিঞ্জারের ওয়ার্ল্ড ওর্ডার, যেখানে বর্তমান বিশ্ব সম্পর্কে সার্বিক বিশ্লেষণ তুলে ধরেছেন সাবেক মার্কিন কূটনীতিক হেনরি কিসিঞ্জার। আলোচনা করেছেন রেজওয়ান মাসুদ।

সম্প্রতি বরেণ্য চিত্রশিল্পী কাইয়ূম চৌধুরী প্রয়াত হয়েছেন। তিনি প্রতিচিন্তার বিগত নয়টি সংখ্যার প্রচ্ছদ অংকন করেছিলেন। এই খ্যাতিমান শিল্পীর শূন্যতায় দেশ ও জাতির যেমন অপূর্ণ ক্ষতি হয়েছে, তেমনি প্রতিচিন্তা ও এর পরিবারেরও অনেক বড় ক্ষতি হয়ে গেছে। শিল্পী কাইয়ূম চৌধুরীর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে উনার পূর্ববর্তী অঙ্কিত কয়েকটি প্রচ্ছদের সমন্বয়ে আমাদের এবারের সংখ্যার প্রচ্ছদ করা হয়েছে। আমরা শিল্পী কাইয়ূম চৌধুরীর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।

pathok

যোগাযোগের ঠিকানা

সিএ ভবন,
১০০ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,
কারওয়ান বাজার, ঢাকা - ১২১৫।

ফোন: ৮৮০-২-৮১১০০৮১, ৮১১৫৩০৭
ফ্যাক্স - ৮৮০-২-৯১৩০৪৯৬

protichinta kinte chile