protichinta

লে খ ক প রি চি তি

সামিয়া রহমান

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক। বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক জার্নালে বারোটির বেশি গবেষণা নিবন্ধ ছাপা হয়েছে। প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা দুই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে স্নাতক ও মাস্টার্সে প্রথম শ্রেণীতে প্রথম ও স্বর্ণ পদক লাভ করেছেন। একুশে টেলিভিশনের শুভযাত্রায় সংবাদ উপস্থাপক হিসেবে গণমাধ্যমে অভিষেক। পরে যথাক্রমে এনটিভি, দেশটিভি এবং বর্তমানে একাত্তর টেলিভিশনে কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স ও প্রোগ্রাম এডিটর হিসেবে কর্মরত।

 সৈয়দ মাহফুজুল হক

প্রভাষক, ক্রিমিনোলজি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এর আগে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক পদে কর্মরত ছিলেন। এছাড়াও কাজ করেছেন দৈনিক সংবাদ, দৈনিক কালের কণ্ঠে। বর্তমানে একাত্তর টেলিভিশন ও বিবিসি বাংলায় খণ্ডকালীন হিসেবে কাজ করছেন। সন্ত্রাসবাদ, সাইবার অপরাধ, ও ইসলামিজম সৈয়দ মাহফুজুল হকের আগ্রহের বিষয়।

এম মোফাখ্খারুল ইসলাম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস বিভাগের প্রাক্তন অধ্যাপক। তিনি ভারত উপমহাদেশের অর্থনৈতিক ইতিহাসচর্চার ক্ষেত্রে একজন বিশেষজ্ঞ। তাঁর প্রধান তিনটি গবেষণাগ্রন্থ হচ্ছে বেঙ্গল এগ্রিকালচার, ১৯২০-৪৬: এ কোয়ানটিটেটিভ স্টাডি (কেমব্রিজ, ১৯৭০); ইরিগেশন, এগ্রিকালচার অ্যান্ড দি রাজ: পাঞ্জাব ১৮৮৭-১৯৪৭ (নিউ দিল্লি, ১৯৯৭) এবং অ্যান ইকোনমিক হিস্ট্রি অব বেঙ্গল, ১৭৫৭-১৯৪৭ (ঢাকা, ২০১৩)। এ ছাড়া বিভিন্ন বিষয়ে লিখিত তাঁর চল্লিশটি প্রবন্ধ দেশি-বিদেশি জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।  

ভিলেম ভেন শ্যান্ডেল

এশিয়ার ইতিহাস, নৃবিজ্ঞান ও সমাজবিজ্ঞানের গবেষক। তিনি আমস্টারডাম বিশ্ববিদ্যালয় (মডার্ন এশিয়ান হিস্ট্রির চেয়ার) ও ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টটিউট অব সোশ্যাল হিস্ট্রিতে শিক্ষকতা ও গবেষণা করেন। তাঁর প্রকাশনার তালিকা দেখলে দক্ষিণ এশিয়া, বিশেষ করে বাংলাদেশ নিয়ে তাঁর আগ্রহের মাত্রা বোঝা যায়। তাঁর রচনার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো: দ্য বাংলাদেশ রিডার: হিস্ট্রি, কালচারম পলিটিক্স, মেঘনাগুহ ঠাকুরতার সঙ্গে যৌথ সম্পাদনা, (ডুরহাম, এনসি: ডিউক ইউনিভার্সিটি প্রেস, ২০১৩); আ হিস্ট্রি অব বাংলাদেশ,  (কেমব্রিজ: কেমব্রিজ ইউনিভার্সিটি প্রেস); দ্য বেঙ্গল বর্ডারল্যান্ড: বিয়ন্ড স্টেট অ্যান্ড নেশন ইন সাউথ এশিয়া (লন্ডন: এনথেম প্রেস, ২০০৫); দ্য চিটাগং হিল ট্র্যাক্টস: লিভিং ইন আ বর্ডারল্যান্ড, ওলফগ্যাং মেই ও আদিত্য কুমার   ধিওয়ানের সঙ্গে সম্পাদনা (ব্যাংকক: হোয়াইট লোটাস), ইউপিএল বাংলাদেশ সংস্করণ বের করে ২০১০ সালে।

হাসান শফি

প্রাবন্ধিক, সমালোচক, গবেষক ও রাজনীতি বিশ্লেষক। হাসান শফি লেখকের অন্যতম কলাম-নাম। এই নামে তিনি সাধারণত রাজনৈতিক-সামাজিক বিষয়াদি নিয়ে লিখে থাকেন। জন্ম ১৯৫৩ সালের ২১ মার্চ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে সম্মানসহ স্নাতকোত্তর। একই বিশ্ববিদ্যালয়ের পি.এইচ.ডি। অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক। তিনি বিভিন্ন পত্রিকায় সাংবাদিকতাও করেছেন। তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলোর মধ্যে রয়েছে: ইসলাম ও মৌলবাদ: ধর্ম ও ধর্মের রাজনীতি (প্রকাশক: প্রতিপক্ষ, ঢাকা, ১৯৮৯); পাকিস্তানবাদের বিরুদ্ধে (প্রকাশক: আজিম অ্যান্ড ব্রাদার্স, ঢাকা, ১৯৯০); সময়ের মুখোমুখি (প্রকাশক: পাঠক সমাবেশ, ঢাকা, ১৯৯৪); পাউডার  পাঁচালি (প্রকাশক: সালমার, ঢাকা, ১৯৯৭); রাজনীতিহীনতার রাজনীতি (প্রকাশক: উত্তরণ, ঢাকা, ২০০১); বিশ্বায়নের কবলে বাংলা ও অন্যান্য প্রসঙ্গ (প্রকাশক: অনুপম প্রকাশনী, ঢাকা, ২০০৮); আমাজন অরণ্যের বীর: চিকো মেন্দেস (প্রকাশক: সুবর্ণ, ঢাকা, ২০০৮); স্রোতের বাইরে (প্রকাশক: শোভা প্রকাশ, ঢাকা, ২০১১); মাঝরাতের টক শো, বিশ্বব্যাংক, ড. ইউনূস প্রভৃতি (প্রকাশক: বর্ণবিচিত্রা, ঢাকা, ২০১৩)।

আজিজুল রাসেল

ইতিহাসবিদ ও গবেষক। বর্তমানে ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস-এ শিক্ষকতা করছেন। পড়াশোনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং নেদারল্যন্ডের লেইডেন বিশ্ববিদ্যালয়ে। উল্লেযোগ্য প্রকাশনা–– প্রবন্ধ: ‘আরমেনিয়ান ডায়াসপোরা ইন বেঙ্গল: ট্রেড এন্ড পলিটিকস ইন দ্য সেভেনটিন্থ এন্ড এইটিন্থ সেঞ্চুরিজ,’ বাংলাদেশ হিস্টোরিক্যাল স্টাডিজ, সংখ্যা ২২, ২০১০-২০১২; গ্রন্থ: দ্য সেভেনটিন্থ সেঞ্চুরি ডাচ ট্রাভেল লিটেরেচার এন্ড দ্য প্রডাকশন অব নলেজ অন এশিয়া  (২০১৩)।

pathok

যোগাযোগের ঠিকানা

সিএ ভবন,
১০০ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,
কারওয়ান বাজার, ঢাকা - ১২১৫।

ফোন: ৮৮০-২-৮১১০০৮১, ৮১১৫৩০৭
ফ্যাক্স - ৮৮০-২-৯১৩০৪৯৬

protichinta kinte chile