protichinta

লে খ ক প রি চি তি

হোসেন জিল্লুর রহমান

অর্থনীতি ও রাজনৈতিক সমাজতত্ত্বে ম্যানচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন। দীর্ঘ দুই দশক ধরে তিনি বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে তিনি পাওয়ার অ্যান্ড পার্টিসিপেশন রিসার্চ সেন্টারের নির্বাহী চেয়ারম্যান। সরকার, উন্নয়ন সহযোগী ও বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে দারিদ্র, স্থানীয় সরকার, ভূমি সংস্কার, সুশাসন, উন্নয়ন ও গণতান্ত্রিক উত্তরণের নানাবিধ গবেষণার সঙ্গে দেশে ও দেশের বাইরে সম্পৃক্ত রয়েছেন। তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থ: রি থিংকিং রুরাল পোভার্টি (সেইজ, ১৯৯৫); মাঠ গবেষণা ও গ্রামীণ দারিদ্র (ইউপিএল, ১৯৯৩); কমিউনিটি ক্যাপাসিটি অ্যান্ড লোকাল গভর্ন্যান্স ইন বাংলাদেশ (ইউপিএল, ২০০২)।

আল মাসুদ হাসানউজ্জামান

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক ও সাবেক চেয়ারম্যান। তিনি ব্রিটেনের বাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্রিটিশ কাউন্সিল স্কলার, যুক্তরাষ্ট্রের কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে সিনিয়র ফুলব্রাইট স্কলার এবং জাপানের কানাজাওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে জাপান ফাউন্ডেশন ফেলো ছিলেন। তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থ: রোল অব অপোজিশন ইন বাংলাদেশ পলিটিকস, (ঢাকা: ইউপিএল); সম্পাদিত গ্রন্থ বাংলাদেশের নারী বর্তমান অবস্থান ও উন্নয়ন প্রসঙ্গ, (ঢাকা: ইউপিএল); বাংলাদেশে সংসদীয় গণতন্ত্র, রাজনীতি ও গভর্ন্যান্স, (ঢাকা: ইউপিএল); এবং পলিটিক্যাল ম্যানেজমেন্ট ইন বাংলাদেশ, (ঢাকা: এএইচ ডেভেলপমেন্ট পাবলিশিং হাউস)।

সাঈদ ইফতেখার আহমেদ

বর্তমানে আমেরিকান পাবলিক ইউনিভার্সিটির স্কুল অব সিকিউরিটি অ্যান্ড গ্লোবাল স্টাডিজের অস্থায়ী শিক্ষক হিসেবে কাজ করছেন। প্রকাশনা— ওয়াটার ফর পুওর উইম্যান: কোয়েস্ট ফর অ্যান অলটারনেটিভ প্যারাডাইম (লেনহাম: লেক্সিংটন বুকস, ২০১৩); লেখালেখির বিষয়— পানি, শাসনব্যবস্থা, ইসলামি মতাদর্শ, গণতন্ত্রায়ণ, জেন্ডার ও উন্নয়ন।

মুহাম্মদ লুত্ফুল হক

১৯৭৭ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর আর্টিলারি কোরে কমিশন পান। ২০০৫ সালে লেফটেন্যান্ট কর্নেল হিসেবে অবসর নেন। বাঙালির সামরিক ইতিহাস এবং স্বাধীনতাযুদ্ধ নিয়ে গবেষণা করছেন। প্রকাশিত গবেষণাগ্রন্থ: স্বাধীনতাযুদ্ধের বীরত্বসূচক খেতাব (২০০৬); বাঙালি পল্টন: ব্রিটিশ ভারতের বাঙালি রেজিমেন্ট (২০১২)। সম্পাদনা গ্রন্থ: রাজশাহী ১৯৭১ (যৌথ, ২০১২); কামালপুর ১৯৭১ (২০১২); মুক্তিযুদ্ধে ২ নম্বর সেক্টর এবং কে ফোর্স (২০১৩); দিনাজপুর ১৯৭১ (২০১৩)।

সুুমন রহমান

কবি, কথাসাহিত্যিক ও প্রাবন্ধিক। নগর, জনসংস্কৃতি ও গণমাধ্যমের সাংস্কৃতিক অধ্যয়ন তাঁর বিদ্যাজাগতিক আগ্রহের বিষয়। সাংস্কৃতিক অধ্যয়নে পিএইচডি করেছেন অস্ট্রেলিয়ার ইউনিভার্সিটি অব কুইন্সল্যান্ড থেকে; বর্তমানে ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টসের (ইউল্যাব) মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজম বিভাগে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত। তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে কানার হাটবাজার (নগর, জনসংস্কৃতি ও গণমাধ্যমের পঠন), গরিবি অমরতা (গল্পগ্রন্থ), সিরামিকের নিজস্ব ঝগড়া (কাব্যগ্রন্থ) ও ঝিঁঝিট (কাব্যগ্রন্থ) ইত্যাদি। এ ছাড়া নারী ও প্রগতি, বনপাংশুল, জার্নাল অব মাইগ্রেশন অ্যান্ড কালচার, জার্নাল অব ক্রিয়েটিভ কমিউনিকেশনস, এশিয়ান জার্নাল অব কমিউনিকেশনসহ নানা দেশি-বিদেশি খ্যাতনামা জার্নালে তাঁর প্রবন্ধাবলি প্রকাশিত হয়েছে এবং প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে।

মুনির-উজ-জামান

কবি ও লেখক। বাংলাদেশ সরকারের সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে সচিব ও পরে রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি সমাজ ও রাজনীতি নিয়ে লেখালেখি করে থাকেন। কবি শামসুর রাহমানের বাছাইকৃত কবিতাসমূহ নিয়ে তাঁর ইংরেজি অনুবাদগ্রন্থ শামসুর রাহমান: কালেকশন অব পয়েমস (২০১০) প্রকাশ করেছে আপন চিত্র প্রকাশনা, কলকাতা।

আজিজুল রাসেল

লেখক ও গবেষক। বর্তমানে প্রথম আলোতে সহকারী গবেষণা কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত। পড়াশোনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং নেদারল্যান্ডসের লেইডেন বিশ্ববিদ্যালয়ে। উল্লেখযোগ্য প্রকাশনা––প্রবন্ধ: ‘আরমেনিয়ান ডায়াসপোরা ইন বেঙ্গল: ট্রেড অ্যান্ড পলিটিকস ইন দ্য সেভেনটিন্থ অ্যান্ড এইটিন্থ সেঞ্চুরিজ’ (বাংলাদেশ হিস্টোরিক্যাল স্টাডিজ, সংখ্যা ২২, ২০১০-২০১২); গ্রন্থ: দ্য সেভেনটিন্থ সেঞ্চুরি ডাচ ট্রাভেল লিটেরেচার অ্যান্ড দ্য প্রডাকশন অব নলেজ অন এশিয়া  (২০১৩)।

pathok

যোগাযোগের ঠিকানা

সিএ ভবন,
১০০ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,
কারওয়ান বাজার, ঢাকা - ১২১৫।

ফোন: ৮৮০-২-৮১১০০৮১, ৮১১৫৩০৭
ফ্যাক্স - ৮৮০-২-৯১৩০৪৯৬

protichinta kinte chile